বুদ্ধ কী মানুষ নাকি দেবতা?

বুদ্ধ কী মানুষ নাকি দেবতা?

বর্তমান সময়ে বুদ্ধকে যে যার মত করে মনে করার একটা প্রবণতা লক্ষ্য করা যায় ।যারা বস্তুবাদী বা নাস্তিক তারা বুদ্ধকে একজন মানুষ বা দার্শনিক (প্লেটো ,সক্রেটিসদের মত) বলে মনে করে থাকেন মাত্র ,এতেই তারা স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেন ।আবার অনেকেই বুদ্ধকে দেবতা মনে করেন ,যেমন অন্যধর্মগুলোর সৃষ্টিকর্তার মত ।কিন্তু বুদ্ধ আসলে কী ?এর একটি সুন্দর তাৎপর্যপূর্ণ ব্যাখ্যা আছে ত্রিপিটকের অঙ্গুত্তর নিকায়ের ‘ধন ব্রাহ্মণ সূত্রে’ ।একসময় মহাকারুণিক ভগবান বুদ্ধ হেঁটে যাচ্ছিলেন ,সেই সময়ে জনৈক ধন ব্রাহ্মণ বুদ্ধ যেই পথে হাঁটছিলেন সেই পথ ধরেই হাঁটছিলেন। তিনি বুদ্ধের চলা পথের উপর সৃষ্ট বুদ্ধের পদচিহ্ন দেখে অবাক বিস্ময়ে বিস্ময়াভিভূত হয়ে পড়েন যেহেতু এরকম নানান চক্র বিশিষ্ট পদচিহ্ন এর আগে কখনো দেখেননি ।পরবর্তীতে সেই ব্রাহ্মণ বুদ্ধকে প্রশ্ন করলেন এই বলে যে –
আপনি কী দেবতা ?উত্তরে বুদ্ধ বললেন ‘না’ ।পুনরায় ক্রমান্বয়ে জানতে চাইলেন তবে কী আপনি যক্ষ নাকী গন্ধর্ব ? প্রতিবারেই বুদ্ধের একই উত্তর ‘না ‘ ।এমনকি যখন ব্রাহ্মণ জানতে চাইলেন তবে কী আপনি মানুষ ?তখনো বুদ্ধ তা পুরোপুরি অস্বীকার করে বললেন, না আমি মানুষ ও নই ।ব্রাহ্মণের প্রশ্ন তবে আপনি কী ?তখন বুদ্ধ বললেন আমি দেবতা ও না ,মানুষ ও না ,যক্ষ ,গন্ধর্ব ও না ,”আমি হলাম বুদ্ধ” ।এখানে বুদ্ধ নিজে কী তা স্পষ্ট করে দিয়েছেন ।বুদ্ধই বলেছেন আমি #বুদ্ধ ।মানুষ ও না দেবতা ও না ।আসলে আমরা সাধারণ মানুষরা বুদ্ধকে নিয়ে সংশয়ে যেহেতু বুদ্ধের গুণ আসলে কী তা জানি না ,চিনি ও না এবং বুঝিও না ।যদি কিঞ্চিৎ‍ পরিমাণেও জানতাম বা বুঝতাম তবে বুদ্ধকে দেবতা বা মানুষ হিসাবে ভাবতে পারতাম না ।এই ধন ব্রাহ্মণ সূত্রেই বুদ্ধ ও আরো পরিষ্কার করে বললেন ,পদ্মফুল যেমন কাঁদা মাটিতে জন্মায় এবং পানিতে থাকে তথাপি পদ্মফুল তার গায়ে কাঁদা কিংবা পানি কিছুই রাখেনা ।তদ্রুপ যদিও বুদ্ধের জন্ম লোভ ,দ্বেষ ,মোহযুক্ত মনুষ্যভূমিতে কিন্তু বুদ্ধ তা সম্পূর্ণরূপেই গয়ার বোধিদ্রুমমূলে বুদ্ধত্ত লাভের মাধ্যামে ত্যাগ করেছেন ।হয়েছেন বুদ্ধ ।তিনি এখন আর দেবতা ও নন মানুষ ও নন ।আসলে আমরা পৃথকজন মানুষ বুদ্ধকে পুরাপুরি কোনোদিন ও চিনব না ।কারণ বুদ্ধ নিজেই একসমময় সারিপুত্র ভান্তেকে বলেছিলেন এই বিষয়ে যখন কিনা সারিপুত্র ভান্তে বুদ্ধের গুণের প্রতি শ্রদ্ধাযুক্তহয়ে বুদ্ধকে বললেন যে বুদ্ধ আপনাকে আমি চিনতে পেরেছি তখন বুদ্ধ ঈষৎ্‍ হেসে বললেন ,সারিপুত্র তুমিও আমাকে চিনোনি ,চিনতে পারবেনা ,যতটুকু চিনেছ তা কেবল তোমার অগ্রমহাপশ্রাবক জ্ঞানে ।প্রকৃতপক্ষে আমাকে চিনতে হলে আরেকজন বুদ্ধ লাগবে ।অর্থাৎ একজন সম্যকসম্বুদ্ধকে পরিপূর্ণরূপে চিনতে পারেন কেবল আরেকজন সম্যকসম্বুদ্ধ ।দেখুন যেই অগ্রমহাশ্রাবক সারিপুত্র ছিলেন বুদ্ধের ডানহাত যিনি কিনা এক কল্পধরে বৃষ্টি হলে, সেই বৃষ্টির কত ফোঁটা জলে আর কতটুকু স্থলে পড়েছে তা পুঙ্খানুপুঙ্খরূপে বলে দিতে পারতেন , সেই অতুলনীয় জ্ঞানসম্পন্ন সারিপুত্র ভান্তেই বুদ্ধকে পুরোপুরি চিনতে পারেননা সেখানে আমরা পৃথকজনরা বুদ্ধকে চিনবো তা ভাবাটা সত্যিই দুষ্কর।
.
বুদ্ধকে যদি আমরা চিনতাম, বুদ্ধের গুণ যদি বুঝতাম কিঞ্চিৎ ্‍হলেও তবে আমাদের চোখে জল চলে আসতে বাধ্য হত ।ইনিই সেই মহাকারুণিক সম্যকসম্বুদ্ধ যিনি চাইলেই সুমেধ তাপস জন্মে দীপঙ্কর বুদ্ধের সময়েই অরহত্ত মার্গফলে প্রতিষ্ঠিত হয়ে সমস্ত দুঃখ হতে নিজেক মুক্ত করতে পারতেন ।অথচ তিনি আমাদের মত দুঃখী সত্তের দুঃখ নিবারণ কল্পে ,নিজে দুঃখকে বরণ করে নিলেন ।বোধিসত্তাবস্থায় পারমীপূরণ করতে গিয়ে আকাশের তারকারাজির চাইতে অধিক সংখ্যক চোখ দান করলেন ।এভাবে অগণিতবার নিজের শরীর দান ,অঙ্গ দান করে পারমীপূরণ করে হয়েছেন সম্যকসম্বুদ্ধ ।তা তো কেবলি জগতের কল্যাণের জন্যই ।বুদ্ধের মহাকারুনিকতা চিন্তা করলে সত্যিই চোখে জল এসে যায় ।

.
বর্তমানে বস্তুবাদী বা নাস্তিকরা বুদ্ধকে একজন মানুষ ছাড়া অন্যকিছু ভাবতে নারাজ ।অথচ বুদ্ধ ই বলেছেন আমি বুদ্ধ। এমনকি বুদ্ধের জন্মের সময়েই বুদ্ধ ছোট্ট সিদ্ধার্থ অবস্থায় আঙুল উচিয়ে ঘোষণা করেছিলেন যে আমিই জৈষ্ঠ ,আমিই শ্রেষ্ঠ ।প্রকৃতপক্ষে বুদ্ধকে মানুষ বা দেবতা বলে আমরা বুদ্ধকে ছোট করে দিচ্ছি। বুদ্ধকে লোভ , দ্বেষ , মোহযুক্ত সত্ত বানিয়ে দিচ্ছি ।অথচ বুদ্ধ গয়ার বোধিদ্রুমমূলেই সমস্ত ক্লেশ ধ্বংস করে লোভ ,দ্বেেষ , মোহমুক্ত হয়েছেন ,হয়েছেন ত্রিলোকপূজ্য ত্রিলোকশ্রেষ্ঠ বুদ্ধ ।বুদ্ধের বুদ্ধত্ত লাভের কথা বাদ ই দিলাম ।বুদ্ধত্ত লাভের পূর্বেই তাঁর ৩২ প্রকার মহাপুরূষ লক্ষণ এবং ৮০প্রকার অনুব্যঞ্জন ছিল ,যা দেখেও নিশ্চিত বলা যায় যে উনি দেবতা ও না মানুষ ও না বা তার চাইতে বেশি কিছু ।

মূল লেখক;জেতবন বড়ুয়া

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s